লাভ স্টোরি মন কেড়ে নেয় - ১ | Jemon Blog
ঢাকাবৃহস্পতিবার - ২৫ নভেম্বর ২০২১
  1. Ecommerce
  2. অনলাইন জব
  3. গল্প জানুন
  4. টেক আপডেট
  5. লাভ স্টোরি
  6. সাকসেস লাইফ
  7. সোস্যাল আপডেট
  8. হেলথ টিপস

লাভ স্টোরি মন কেড়ে নেয় – ১

যেমন ব্লগ ডেক্স
নভেম্বর ২৫, ২০২১ ১২:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

লাভ স্টোরি! ভালোবাসার গল্প দেখলেই পড়তে ইচ্ছে করে বিশেষ করে যারা ইতিমধ্যে কোন একটা রিলেশনশিপে ভালোবাসার মধ্যে আবদ্ধ তাদের মনে ভালোবাসার জন্য প্রচুর জায়গা হয়ে থাকে তারা বোঝে ভালোবাসা কতটা মহত এবং এর মধ্যে কতটা সুখ খুঁজে পাওয়া যায়। ভালোবাসা একটি অদ্ভুত জাদুর মত। এমন একটি অদ্ভুত জাদু আমার সাথে হয়েছিল শুনবেন সেই ঘটনা তাহলে শুনতে থাকুন।

আমার নাম ইমরান হোসেন, আমি বর্তমানে ইন্টার সেকেন্ড ইয়ারে পড়ি। আমার বয়স এখন ২০ বছর। ভালো-মন্দ খারাপ রাগ অভিমান সবটাই বোঝার ক্ষমতা আমার মধ্যে আল্লাহ দিয়েছেন। আমরা মধ্যবিত্ত। তবে ফ্যামিলির মধ্যে প্রচুর সুখ রয়েছে ফ্যামিলির মধ্যে কোন সমস্যা নেই আলহামদুলিল্লাহ আমরা সবাই ভালো আছি।

আমি প্রাইমারি কিংবা হাই স্কুল লাইফে কোন রিলেশন এর মধ্যে আবদ্ধ হই নি কিন্তু কিভাবে কি করে যে কলেজ লাইফে আমি তাদের মধ্যে জড়িয়ে গেছে তা বুঝতে পারিনি। এখন আমি ইন্টার সেকেন্ড ইয়ারে পড়ি আমার সাথে প্রত্যেকদিন অদ্ভুত কিছু ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। একটা মেয়ে দেখতে পরীর মত আমাকে পছন্দ করে কয়েকদিন আমাকে কিছু বলতে চাও আর চিন্তা ভাবনা আমার কাছে এসেছে কিন্তু সাহস করে বলতে পারেনি।

আরো পড়ুনঃ  চিকন থেকে মোটা হওয়ার উপায়

আমি বুঝতে পারছিলাম আমাকে কিছু বলতে চাই কিন্তু আমি এতটা গুরুত্ব না দিয়ে নিজের মতো করে হাসি-ঠাট্টা করে উড়িয়ে দিলাম হয়তো বুঝতে পারছে আমি ওকে ভালোবাসি না কিন্তু না সত্যিকার অর্থে আমিও সোনিয়াকে অনেক বেশি ভালবাসতাম।

ওহে আপনাকে বলা হয়নি ওর নাম ছিল “সোনিয়া আক্তার হ্যাপি”। ওর চোখ দুটো মায়াবী ছিল খুব ভালো লাগতো আমার মাঝে মাঝে তাকিয়ে থাকতাম আমরা ছিলাম একই ক্লাসের শিক্ষার্থী। হয়তো ও ফলো করতো ক্লাসের মধ্যে আমি কারো দিকে অথবা কারো সাথে অত বেশি আড্ডা বাজে কথা বলতাম না হয়তো এজন্য আমাকে ভালো লেগেছে।

এভাবে আমাকে ভালোবাসার গল্প নিজেদের মধ্যে চলতে থাকে কেউ কাউকে প্রপোজ করছে না যদিও আমার ভালো লাগে কিন্তু আমি ওকে প্রপোজ করছি আর সোনিয়া আমাকে প্রপোজ করতে চেয়েও করতে পারছে না হয়তো লজ্জা কিভাবে তৈরি হচ্ছে নিজের মধ্যে এভাবে চলতে থাকে কয়েক মাস।

একদিন হঠাৎ করে আমি রাতে ফেসবুক ইন করতেছি এর মধ্যে একটা নতুন ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট আছে সোনিয়া আক্তার হ্যাপি নামে আমার বুঝতে বাকি রইল না এটা শুনিয়া হবে আমি অপেক্ষা না করে ওর আইডি চেকিং শুরু করলাম প্রোফাইল এর মধ্যে ঢুকে সবকিছু দেখতে লাগলাম অবশ্য ওর কোন ছবি পেলাম না।

আরো পড়ুনঃ  ভালোবাসার শেষ পরিনতি

আমি ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করে নিলাম। এর কিছুক্ষণ পরই ওই আইডি থেকে “HI” লিখেছে আমি বুঝতে পারলাম এটা সোনিয়া হবে। অপেক্ষা না করে রিপ্লাই করলাম “who are you?” ওই পাশ থেকে মেসেজ আসলো, “আমি সোনিয়া” তাৎক্ষণিকভাবে আমি বুঝতে পারলাম এটা আর কেউ না সোনিয়া হবে পরে বললাম আমাকে কিভাবে খুজে পেলেন কেমন আছেন আপনি আপনার কথাবার্তা চলতে লাগলো।

পরের দিন কলেজে গেলাম আমার দিকে তাকিয়ে মুচকি মুচকি হাসি দিচ্ছে যদিও আমি ইগনোর করে যাচ্ছি আমার প্রচুর লজ্জা করত তাই। দেশের বিভিন্ন কলেজের বাইরে ওর সাথে আমি কথা বলতাম না আমার প্রচন্ড করত শুধু সোনিয়া নয় কোন মেয়ের সাথে আমি আড্ডা কিংবা কথা বলতে পারতাম না কোন মেয়ের দিকে তাকাতে পারতাম না আমার প্রচুর লজ্জাকর তো। এভাবে চলতে লাগল রাতে বিকেলে সকালে ফেসবুকে চ্যাটিং হতো কিন্তু কলেজ টাইমে কোন কথা হতো না।

ফেসবুকে কথা বলতে বলতে বেশ পরিচিত হয়ে গেলাম এখন খুব বিজি মনে হচ্ছে উনি আমাকে বলল আচ্ছা আমরা দেখা কোরবেন আমি বললাম কোথায় বলল কলেজের পূর্ব পাশের পার্কে, আমি বললাম ঠিক আছে! কখন করবে না আমি আমার শনিবার বিকেলে। আমি বললাম ঠিক আছে শনিবার বিকেলে ওখানে আসেন দেখা হবে কথা হবে।

আরো পড়ুনঃ  পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকার উপকারিতা

এরপরে শনিবার হতে আর দুদিন বাকি এই দুদিন যেন আমার এখান থেকে কাটছে না প্রচুর চেষ্টা করলাম এই দুদিনে ওর সাথে মেসেজে প্রচুর কথা হতো কিন্তু আমরা কখনও মেসেঞ্জার কল কিংবা নাম্বারে কল দিয়ে কখনো কথা বলা হয়নি। শুধু টেক্সট করতাম এভাবে আমাদের কথা চলতে থাকল শনিবার চলে আসবে বিকালবেলা প্রস্তুত হতে লাগলাম আমি অনেক বেশি কনফিউজড ওর সাথে দেখা করে কি বলব কিভাবে দেখা করব বিষয়গুলো নিয়ে কনফিউজড থাকার পরেও আমি চলে গেলাম পার্কে।

পরবর্তী পর্ব এখানে দেখুন!