চিকন থেকে মোটা হওয়ার উপায় | Jemon Blog
ঢাকামঙ্গলবার - ৩১ আগস্ট ২০২১
  1. Ecommerce
  2. অনলাইন জব
  3. গল্প জানুন
  4. টেক আপডেট
  5. লাভ স্টোরি
  6. সাকসেস লাইফ
  7. সোস্যাল আপডেট
  8. হেলথ টিপস

চিকন থেকে মোটা হওয়ার উপায়

যেমন ব্লগ ডেক্স
আগস্ট ৩১, ২০২১ ৩:৫৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

অনেকেই ভেবে থাকেন কখনো চিকন থেকে মোটা হওয়া যায় না, এর কারনে অনেকে অনেক হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। আসলে মানুষের শরীরে যখন ক্যালোরি কমে যায় এবং বিভিন্ন পুষ্টির মাত্রা কমে যায় তখন মানুষ চিকন হতে থাকে। এখন আপনাদের মাঝে আমি কিছু আলোচনা করব চিকন থেকে মোটা হওয়ার উপায় নিয়ে।

প্রত্যেকটা মানুষ যারা চিকন তারা মোটা হতে চাই। কারণ তারা জানে চিকন হওয়ার কতটা কষ্টের কারণ মানুষজন খারাপ ভাবে কটু কথা বলতে থাকে। কিন্তু একটা বিষয় ভালোভাবে জেনে রাখা জরুরি মানুষ যখন নিজের স্বাস্থ্য নিজে নষ্ট করে থাকে বিভিন্ন কারণে।

অধিক পরিমাণের চিন্তা করার কারণে শরীরের অনেক ক্যালোরি বের হয়ে যায়। আর শরীরকে চিকন করতে ক্যালরির সংকট দেখা দিলেই যথেষ্ট, মানুষ এসব নিয়ে খুবই হতাশার পড়ে যায় যখন সে চিকন হতে থাকে।

চিকন থেকে মোটা হওয়ার উপায় সম্পর্কে নিচে কিছু বর্ণনা দেওয়া হচ্ছে

আসলে মানুষ যখন খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে ও যত্নবান হয় তখন মানুষ চিকন হতে থাকে। প্রত্যেকটা মানুষের জরুরি খাবার তালিকা টি ঠিক রাখা। চিকন হওয়ার কিছু কারণ এবং চিকন থেকে মোটা হওয়ার উপায় নিচে বর্ণনা করা হলো।

ব্যায়াম করা

চিকন থেকে মোটা হতে হলে বিভিন্ন ধরনের ব্যায়াম আছে সেসব ব্যায়াম করতে হবে। ব্যায়াম করার আগে পরিমিত খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। সঠিক নিয়মে খাবার গ্রহণের সাথে সাথে সঠিক নিয়মে যদি ব্যায়াম করা যায় তাহলে শরীরের পেশী গুলো সুদৃঢ় হবে।

আরো পড়ুনঃ  মেয়ে পটানোর কয়েকটি টিপস

এর ফলে শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বৃদ্ধি পাবে এবং মোটা হবে। এছাড়াও ব্যায়ামের বিভিন্ন সুফল রয়েছে, এটি শরীরকে বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে আবার শরীরকে কমাতে সহায়তা করে। তাই শরীর বৃদ্ধির ব্যায়াম করতে হবে এবং সঠিক নিয়মে খাবার গ্রহণ করতে হবে। প্রত্যেকদিন যদি নিয়ম মেনে ব্যায়াম করা যায় এবং খাবার খাওয়া যায় তাহলে অবশ্যই মোটা হতে পারবেন।

বার বার খাবার খাওয়া

আসলে শরীরে যখন খাবারের ঘাটতি হয় তখন শরীরে শক্তি পাইনা এবং ক্যালোরি তৈরি হয় না। এর ফলে শরীর চিকন হতে থাকে তাই প্রয়োজন বেশি বেশি করে বার বার খাবার খাওয়া।

এর ফলে শরীরে খাদ্যের চাহিদা পূরণ হবে এবং অতিরিক্ত খাদ্য খাবার কারণে শরীরের ক্যালরি বেড়ে যাবে এবং শরীর তখন আস্তে আস্তে মোটা হতে থাকবে। শরীরের পেশী গুলো শক্তিশালী হবে। তাই নিয়মিত খাবার খেতে হবে এবং বেশি পরিমাণে খেতে হবে।

সুষম খাবার খাওয়া

সুষম খাবার খাওয়া এটি একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ভেজাল খাবার খাওয়ার কারণে শরীরের বিভিন্ন অসুখ বিসুখ এর জন্ম নেয়। এর ফলে শরীর রোগা ক্লান্ত হয়ে পড়ে। তাই প্রয়োজন সুষম খাবার খাওয়া সুষম খাবার খেলে খাবারটি অল্প হলেও শরীরের জন্য উপকারী। অধিক ক্যালরিযুক্ত খাদ্য গ্রহণ করতে হবে এর ফলে শরীরে প্রয়োজনীয় উপাদান এর চাহিদা পূরণ হবে। যখন প্রয়োজনীয় উপাদান এর চাহিদা পূরণ হবে তখনই শরীর বৃদ্ধি পাবে এবং মোটা হবে। তাই খাদ্যতালিকায় অবশ্যই সুষম খাবার থাকা জরুরি এবং ভেজাল খাদ্য পরিহার করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  লাভ স্টোরি মন কেড়ে নেয় - ১

সঠিক প্রোটিন গ্রহণ করা

প্রোটিনযুক্ত খাবার গুলো সব থেকে বেশি খেতে হবে। কারণ শরীরে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করা খুবই জরুরী। যখন আপনি প্রোটিনযুক্ত খাবার খাবেন তখন আপনার শরীরে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ হবে। এর ফলে আপনার শরীরের কার্যক্ষমতা বেড়ে যাবে এবং বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করতে সহায়তা করবে। এর ফলে আপনার শরীর সুস্থ হয়ে যাবে এবং আপনার শরীর বৃদ্ধি পেতে থাকবে। তাই প্রয়োজন সঠিক প্রোটিন গ্রহণ করা।

টেনশন মুক্ত থাকা

একটা মানুষকে চিকন হতে বাধা দেয় অথবা চিকন করে তোলে এর প্রধান কারণ হচ্ছে টেনশন করা বা চিন্তা করা। সহজ ভাষায় বললে বুঝবেন মানুষ যখন অধিক পরিমাণে চিন্তা করতে থাকে তখন তাদের অনেক কিছু চাহিদা আটকে যায়। যেমন ধরুন খাবার খেতে হলে শরীর সুস্থ থাকা জরুরী। আর মানুষ যখন চিন্তাযুক্ত থাকে তখন কোন কিছুই ভালো না মাথায় আলাদা চাপ হয়ে থাকে ,যার ফলে মানুষ কোন কিছুই করতে পারে না এবং না খেয়ে খেয়ে শরীরকে দুর্বল করে ফেলে। যখনই শরীর দুর্বল হয়ে যায় তখনই অনেক অসুখ বিসুখে আক্রমণ করে ,এর জন্য সবথেকে বেশি জরুরী হচ্ছে নিজেকে চিন্তা মুক্ত রাখা।

আরো পড়ুনঃ  ত্বক ফর্সা করার উপায়

ঘুম

ঘুম হলো একটা মানুষের চিন্তা মুক্ত থাকার উপায়। এছাড়াও ঘুমানোর কারণে শরীরের বৃদ্ধি ঘটে। কারণ শরীর স্থির থাকে এবং শরীরের বিভিন্ন কার্যপ্রক্রিয়া চলতে থাকে। যার ফলে ঘুমের কারণে মানুষ মোটা হয়ে যায়।

বলা যায় যে ঘুমের কারণেই মানুষ অধিক পরিমাণে মোটা হতে থাকে এবং ওজন বাড়তে থাকে। পরিমিত খাবার খাওয়ার ফলে ঘুম ভালো হয়। পরিমিত খাবার খেতে হবে এবং সঠিক নিয়মে ঘুমাতে হবে।

একজন মানুষকে প্রত্যেকদিন কমপক্ষে হলেও আট ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। এর সাথে সাথে ডিম, ঘি, মাখন, মাংস, কোমলপানীয়, চকলেট, আলু ভাজা, মিষ্টি জাতীয় খাবার এবং শাকসবজি খেতে হবে। এর ফলে শরীরের চাহিদা পূরণ হবে এবং শরীর মোটা হবে।

আপনারা সবাই ভালো থাকুন এবং সবাই সুস্থ থাকুন। ধন্যবাদ।